সর্বশেষ লেখাসমূহ:
বাংলা একাডেমির সাধারণ পরিষদের বার্ষিক সভা অনুষ্ঠিত

বাংলা একাডেমির সাধারণ পরিষদের বার্ষিক সভা অনুষ্ঠিত

Print Friendly, PDF & Email

তুষারধারা ডেস্ক:
গত ৮ ডিসেম্বর ২০১৮ (২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫) শনিবার বাংলা একাডেমির সাধারণ পরিষদের ৪১তম বার্ষিক সভা একাডেমি প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।

সংগীত সংগঠন ‘বৈতালিক’-এর শিল্পীদের সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশনা এবং পবিত্র ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠের মধ্য দিয়ে সভা শুরু হয়। এটি পরিচালনা করেন শিল্পী তপন মাহমুদ। এরপর দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখা প্রয়াত গুণী ব্যক্তিদের স্মরণে শোকপ্রস্তাব পাঠ ও তাঁদের স্মৃতির প্রতি সম্মান জানিয়ে এক মিনিট দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন করা হয়।

এরপর উপস্থাপন করা হয় ২০১৭-২০১৮ সালের বার্ষিক প্রতিবেদন এবং ২০১৮-২০১৯ সালের বাজেট। বাংলা একাডেমির ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক ও সচিব মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বার্ষিক প্রতিবেদন ও বাজেট উপস্থাপন। বার্ষিক প্রতিবেদন ও বাজেট সম্পর্কে সাধারণ আলোচনায় অংশ নেন একাডেমির সদস্যবৃন্দ। সদস্যদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর ও উত্থাপিত প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে বক্তব্য প্রদান করেন একাডেমির ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক। সভায় ২০১৭ সালের ৩০ ডিসেম্বর তারিখে অনুষ্ঠিত ৪০তম বার্ষিক সাধারণ সভার কার্যবিবরণী একাডেমির ফেলো, জীবনসদস্য ও সদস্যদের সম্মতিক্রমে অনুমোদন ঘোষণা করেন বার্ষিক সাধারণ সভা ২০১৮-এর সভাপতি এবং বাংলা একাডেমির সভাপতি জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।

সভায় দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন এমন ৭ জন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে বাংলা একাডেমি সম্মানসূচক ফেলোশিপ ২০১৮ এবং বাংলা একাডেমি পরিচালিত চারটি পুরস্কার প্রদানের মাধ্যমে তাঁদের কর্মের স্বীকৃতি প্রদান করা হয়। বাংলা একাডেমি সম্মানসূচক ফেলোশিপ ২০১৮ প্রাপ্ত ব্যক্তিরা হলেন: অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম (শিক্ষা ও গবেষণায়), শিল্পী মনিরুল ইসলাম (চারুকলায়), মঞ্জুলিকা চাকমা (কারুশিল্পে), শিল্পী রওশন আরা মুস্তাফিজ (সংগীতচর্চায়, এসএম মহসীন (নাট্যকলায়), ডা. সামন্ত লাল সেন (চিকিৎসাসেবায়) এবং পলান সরকার (বইবান্ধব সমাজ প্রতিষ্ঠায়)। পলান সরকার অসুস্থ থাকায় তাঁর পক্ষে তাঁর জ্যেষ্ঠ সন্তান জনাব মো. হায়দার আলী ফেলোশিপ গ্রহণ করেন।

ইমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী সাহিত্যিক মোহম্মদ বরকতুল্লাহ প্রবন্ধসাহিত্য পুরস্কার ২০১৮ (পুরস্কার-এর অর্থমূল্য এক লক্ষ টাকা), কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা মযহারুল ইসলাম কবিতা পুরস্কার-২০১৮ (পুরস্কার-এর অর্থমূল্য এক লক্ষ টাকা), কবি আবিদ আজাদ (মরণোত্তর) সা’দত আলি আখন্দ সাহিত্য পুরস্কার ২০১৮ (পুরস্কার-এর অর্থমূল্য পঞ্চাশ হাজার টাকা), অধ্যাপক হায়াৎ মামুদ কবীর চৌধুরী শিশুসাহিত্য পুরস্কার ২০১৮ (পুরস্কার-এর অর্থমূল্য এক লক্ষ টাকা) লাভ করেন।

বাংলা একাডেমির সভাপতি অধ্যাপক আনিসুজ্জামান এবং ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন পুরস্কার ও ফেলোশিপপ্রাপ্তদের হাতে পুরস্কারের অর্থমূল্য, সম্মাননাপত্র, সম্মাননা-স্মারক ও ফুলেল শুভেচ্ছা তুলে দেন। প্রয়াত কবি আবিদ আজাদের পক্ষে তাঁর জ্যেষ্ঠ সন্তান জনাব তাইমুর রশীদ পুরস্কার গ্রহণ করেন।

জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান সভাপতির ভাষণে বলেন, বাংলা একাডেমি প্রতিষ্ঠার পর থেকে তার সামর্থ্য অনুযায়ী বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের গবেষণায় কাজ করে যাচ্ছে। এই প্রতিষ্ঠানকে ঘিরে মানুষের প্রত্যাশা বিপুল। আজকের সাধারণ সভায়ও একাডেমির সদস্যবৃন্দ নানা মতামত ও প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন। আমাদের মনে রাখতে হবে বাংলা একাডেমি যেমন এর কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের তেমনি সদস্যরাও একাডেমি পরিবারের অংশ। আমরা আশা করি, আগামী দিনগুলোতে বাংলা একাডেমি সকলের সহযোগিতায় তার কার্যক্রম আরো সুচারুরূপে পালন করতে সক্ষম হবে।

বাংলা একাডেমির পরিচালক ডা. কে এম মুজাহিদুল ইসলাম এবং উপপরিচালক ড. শাহাদাৎ হোসেন সাধারণ সভার কার্যক্রম সঞ্চালনা করেন।

সর্বমোট পঠিত: 65

সর্বশেষ সম্পাদনা: ডিসেম্বর ১১, ২০১৮ at ৬:১৯ পূর্বাহ্ণ

প্রিজম আইটি: ওয়েবসাইট ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট-এর জন্য যোগাযোগ করুন- ০১৬৭৩৬৩৬৭৫৭