সর্বশেষ লেখাসমূহ:
যে প্রক্রিয়ায় নির্বাচন করা হয় সাহিত্যে নোবেল বিজয়ী

যে প্রক্রিয়ায় নির্বাচন করা হয় সাহিত্যে নোবেল বিজয়ী

Print Friendly, PDF & Email

তুষারধারা ডেস্ক:
সাহিত্যিকদের কাছে নোবেল এক বিরাট স্বপ্ন। কারো জীবনে সাহিত্যে এই নোবেল পুরস্কার স্বপ্ন হয়ে ধরা দেয়, আর কারো কারো জীবনে সেটি থেকে যায় অধরা। সাহিত্যে সেই নোবেল পুরস্কার নিয়েই আপনাদের জন্য আমাদের আজকের আয়োজন।

সাহিত্যে নোবেল পুরস্কারের এ প্রক্রিয়াটি শুরু হয় যে বছর পুরস্কার ঘোষণা করা হবে তার আগের বছরের সেপ্টেম্বর মাস থেকে। এ সময় যারা মনোনয়ন দেয়ার যোগ্য বলে বিবেচিত তাদের কাছে সুইডিশ একাডেমি আমন্ত্রণপত্র পাঠায়। যারা মনোনয়ন দেয়ার জন্য যোগ্য, তারা হলেন একাডেমির সদস্য, সাহিত্যে নোবেল জয়ী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান, সাহিত্যে নোবেল কমিটির সাবেক ও বর্তমান সদস্য, অধ্যাপক (ভাষা ও সাহিত্য) এবং নরওয়েজিয়ান নোবেল ইনস্টিটিউটের সাবেক উপদেষ্টারা।
মোট ৮টি ধাপে সম্পন্ন হয় সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার।

ধাপ-১, সেপ্টেম্বর : এ সময় মনোনয়ন দেয়ার জন্য ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছে আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হয় । এর সংখ্যা ৬০০ থেকে ৭০০। আমন্ত্রণপত্র পাওয়ার পর পরের বছরের ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত আমন্ত্রিত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান মনোনয়নপত্র জমা দিতে পারেন। তবে কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান নিজেকে মনোনয়ন দিতে পারেন না।

ধাপ-২, ফেব্রুয়ারি : ৩১ জানুয়ারির মধ্যে জমা হওয়া মনোনয়নপত্র থেকে একটি প্রাথমিক তালিকা তৈরি করা হয়। এটি একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা। নোবেল কমিটি প্রার্থীদের কাজগুলো মূল্যায়নপূর্বক এই তালিকা তৈরি করে। এরপর তালিকাটি দেয়া হয় সুইডিশ একাডেমির অনুমোদনের জন্য।

ধাপ-৩, এপ্রিল : প্রাথমিক তালিকা মূল্যায়নের জন্য এবার আরও স্টাডির পালা। এরপর ১৫ থেকে ২০ জনের নাম নির্বাচন করা হয়।

ধাপ-৪, মে : এই ধাপটি চূড়ান্ত প্রার্থী নির্বাচনের ধাপ। পাঁচটি বিষয়ের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে চূড়ান্ত প্রার্থী নির্বাচন করতে কমিটি বিবেচনার জন্য পাঠায় সুইডিশ একাডেমিতে।
1
ধাপ-৫, জুন-আগস্ট : ব্যাপক স্টাডির ধাপ এটি। অর্থাৎ এ সময়টাতে চূড়ান্ত প্রার্থীদের বিষয়ে আরও গভীরভাবে স্টাডি করা হয়। চূড়ান্ত প্রার্থীদের কাজ, সাহিত্য ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে মূল্যায়ন এবং প্রত্যেক প্রার্থীর জন্য পৃথক পৃথক প্রতিবেদন তৈরি করা হয়।

ষষ্ঠ-৬, সেপ্টেম্বর : এবার আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষার পালা। চূড়ান্ত প্রার্থীদের মূল্যায়ন দেখার পর সেপ্টেম্বর মাসে একাডেমির সদস্যরা পুনরায় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন। সদস্যরা সবার বিষয়ে পর্যালোচনা করেন এবং পুনরায় মূল্যায়ন করেন।

ধাপ-৭, অক্টোবর : এবার চূড়ান্ত নির্বাচনের পালা। এ মাসের প্রথম দিকে ভোটের মাধ্যমে সাহিত্যে নোবেল বিজয়ীর চূড়ান্ত নাম নির্বাচন করা হয়। নির্বাচিত প্রার্থীকে অবশ্যই গৃহীত ভোটের অর্ধেকেরও বেশি ভোট পেতে হয়। এরপরই সুইডিশ একাডেমি ঘোষণা করে সাহিত্যে নোবেল বিজয়ীর নাম।

ধাপ-৮, ডিসেম্বর : ডিসেম্বর মাসের ১০ তারিখে সুইডেনের স্টকহোমে নোবেল কমিটি সাহিত্যে নোবেল বিজয়ীর হাতে তুলে দেয় পুরস্কার।

আরও পড়ুতে ক্লিক করুন
ছড়াকার লুৎফর রহমান রিটন এর লেখা- আম্মা
সত্যমিথ্যা করতালি সবখানে – সাযযাদ কাদির
মেধা বা শ্রমের সৃষ্টি কপিরাইট – এডভোকেট মো: আকবর হোসেন
বাংলা সাহিত্য লেখক অভিধান
প্রকাশনা সংস্থা- তুষারধারা কর্তৃক প্রকাশিত ও পরিবেশিত বই

ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন
বিখ্যাত ছড়াকার সুকুমার বড়ুয়ার কন্ঠে নিজের ছড়া- ‘ঠিক আছে ঠিক আছে’ এর পাঠ
কবি আরিফ মঈনুদ্দীনের কবিতা পাঠ
সুমনা শান্তা-এর আবৃত্তিতে কবি আমিনুল ইসলাম মামুন-এর কবিতা- ঢাকার ছবি

সর্বমোট পঠিত: 125

সর্বশেষ সম্পাদনা: ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২১ at ৫:৫৪ পূর্বাহ্ণ

প্রিজম আইটি: ওয়েবসাইট ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট-এর জন্য যোগাযোগ করুন- ০১৬৭৩৬৩৬৭৫৭